আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে কঠোর হওয়ার নির্দেশ

0
782

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে আরো সতর্কতার সঙ্গে এবং কঠোরভাবে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দিয়েছে মন্ত্রিসভা। বলা হয়েছে, নির্দেশনা অমান্যকারীদের বিষয়ে প্রয়োজনে কঠোর হতে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সোমবার সকালে গণভবনে অনুষ্ঠিত হয় মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠক

সোমবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গণভবনে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এই নির্দেশ প্রদান করা হয়। বিকেলে সচিবালয়ে বৈঠকের বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। খবর: বাসস।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘আজ থেকে সোশ্যাল আইসোলেশন বাস্তবায়নের জন্য আরও সতর্ক এবং কঠোরভাবে পদক্ষেপ নিবে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। তারা প্রচার-প্রচারণায় অধিক গুরুত্ব দেবে, যাতে মানুষের মাঝে সচেতনতা আরও বৃদ্ধি পায়।’

তিনি বলেন, ‘ইতোমধ্যেই করোনা পরিস্থিতি আগের থেকে কিছুটা অবনতি হয়েছে। সুতরাং জনগণের পরিপূর্ণ সাহায্য ছাড়া এটা কোনভাবেই নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব নয়।’ এজন্য কোয়ারেন্টাইন বা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য বারংবার মন্ত্রিসভার পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

খন্দকার আনোয়ার বলেন, ‘যেখানে কোয়ারেন্টাইন বা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা প্রয়োজন সেটা নিজ দায়িত্বে আপনারা বাস্তবায়ন করবেন। অন্যথায় কোনভাবেই এটাকে (করোনাভাইরাসের বিস্তার) নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে না।’

করোনা নিয়ে মন্ত্রিসভায় বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘সেলফ কোয়ারেন্টাইন অনেকেই মানছেন না, যে কারণে মন্ত্রিসভা এ সম্পর্কে সর্বাধিক গুরুত্বারোপ করেছে।’

তিনি বলেন, জনগণ নিজেদের সুরক্ষায় যদি নিজেরা এগিয়ে না আসেন তবে, সরকারের একার পক্ষে এটি বাস্তবায়ন খুব কঠিন হয়ে পড়ে।

মন্ত্রিসভায় আসন্ন পয়লা বৈশাখ এবং বাংলা নববর্ষ উদযাপনে বাইরের সব অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে উল্লেখ করে কোথাও জনসমাগম না করে সবাইকে ঘরে থাকার মাধ্যমে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে নানা ডিজিটাল ডিভাইস এবং সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে বর্ষবরণের আহ্বান জানানো হয়।

পাশাপাশি ‘পবিত্র শবে বরাত’-এও ঘরে থেকে ইবাদত বন্দেগীর মাধমে এবং মসজিদে নামাজের জামাতে অংশগ্রহণের বিষয়ে দেশের আলেম-ওলামাদের মতামতের ভিত্তিতে ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রদত্ত নির্দেশনা অনুসরণের কথাও স্মরণ করিয়ে দেয়া হয়।

এ প্রসঙ্গে বর্তমানে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে মক্কা এবং মদিনা শরিফে যারা মসজিদ কম্পাউন্ডের মধ্যে রয়েছেন তারাই সেখানে জামাতে নামাজ আদায় করছেন বলেও মন্ত্রিপরিষদ সচিব উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, ‘এই নির্দেশনা সবাইকেই মেনে চলতে হবে। আর একে যদি আমরা গুরুত্ব না দেই তাহলে এই ভাইরাসের বিস্তার রোধ করা সম্ভব হবে না।’