আলেপ্পো ও ইদলিবে রুশ বিমান হামলা

0
1380
বিমান হামলার পর ইদলিবের একটি গ্রাম। ছবি: এএফপি

রুশ নেতৃত্বাধীন বাহিনীর হামলায় সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে অন্তত ৪০ জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে। এই হামলায় রাশিয়া ও সিরিয়ার পাশাপাশি ইরানের মিলিশিয়া বাহিনীগুলোও যুক্ত ছিল।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে রয়টার্স ও বিবিসি জানায়, মঙ্গলবার সরকারি বাহিনী নিয়ন্ত্রিত আলেপ্পোর পশ্চিমে এবং ইদলিব প্রদেশের দক্ষিণ-পূর্বে মারদাবেশে হামলা চালানো হয়। এসব হামলায় সরকারবিরোধী বিদ্রোহীদের পর্যুদস্ত করা হয়। সিরিয়ান বিদ্রোহীদের হটাতে যৌথবাহিনী বড় ধরনের অভিযান শুরু করেছে।

আলেপ্পোর পশ্চিমের কফার তাল গ্রামে চালানো হামলায় একই পরিবারের আট জন নিহত হয়েছে। এদের মধ্যে ছয় শিশুও রয়েছে। এছাড়া ইদলিবের মারদাবেশে চালানো হামলায় নয় জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়।

রাশিয়ার বিমান হামলার পর ওই এলাকা থেকে কয়েক হাজার বেসামরিক নাগরিক তুরস্ক সীমান্তের দিকে পালিয়ে যাচ্ছে।

রাশিয়া বিমান হামলার পাশাপাশি স্থলভাগেও তার শক্তি বৃদ্ধি করেছে। রাশিয়ার নেতৃত্বে সিরিয়ার সরকারি বাহিনী ও ইরানের মিলিশিয়া গ্রুপগুলো বিদ্রোহী অধিকৃত এলাকার অনেক ভিতরে ঢুকে পড়েছে।

রাশিয়া ২০১৫ সালে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের পক্ষ নিয়ে যুদ্ধে জড়িয়ে পড়লে পরিস্থিতি পুরোপুরি পাল্টে যায়। রুশ অস্ত্র আর যুদ্ধ কৌশলের কারণে আস্তে আস্তে কোনঠাসা হয়ে পড়ছে বিদ্রোহীরা। আসাদের অনুগত বাহিনী বিভিন্ন এলাকা পুনরুদ্ধার করতে শুরু করেছে। ফলে ইদলিব ছাড়া বাকি সব অঞ্চলই বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রণমুক্ত হয়ে পড়েছে। আর এ কারণেই আসাদ বাহিনী রাশিয়া ও অন্য মিত্রদের সহায়তায় ইদলিবে একের পর এক অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে।