একদিনেই আক্রান্তের সংখ্যা ২ হাজার ছাড়ালো

0
375

করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের হিসেবে বাংলাদেশ উঠে এসেছে তালিকার ২২ নম্বরে। দেশে গত ২৪ ঘন্টায় দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত আরও ২ হাজার ২৯ জন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এটি একদিনে আক্রান্তের সর্বোচ্চ রেকর্ড। বর্তমানে এ ভাইরাসে শনাক্ত ৪০ হাজার ৩২১ জন রোগী রয়েছেন। এই সময়ের মধ্যে মারা গেছেন ১৫ জন। দেশে এই পর্যন্ত করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা দাড়ালো ৫৫৯ জন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত অনলাইন লাইভ ব্রিফিংয়ে অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডাক্তার নাসিমা সুলতানা এসব তথ্য জানান।

তিনি জানান, মৃত্যুবরণকারী ১৫ জনের মধ্যে পুরুষ ১১ জন ও নারী ৪ জন। বিভাগ বিশ্লেষণে ৭ জন ঢাকার এবং ৮ জন চট্টগ্রামের। বয়স বিশ্লেষণে ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ২ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৫ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ৫ জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ২ জন, ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে ১ জন। এলাকাভিত্তিক হিসাবে ঢাকা সিটিতে ৬ জন, নারায়ণগঞ্জে ১ জন, চট্টগ্রাম সিটিতে ২ জন, চট্টগ্রাম জেলায় ২ জন, কক্সবাজারে ২ জন এবং কুমিল্লায় ২ জনসহ মোট ১৫ জন মৃত্যুবরণ করেছেন।

ব্রিফিংয়ে বলা হয়, গতকালের চেয়ে আজ ৪৮৮ জন বেশি শনাক্ত হয়েছেন। গতকাল শনাক্ত হয়েছিলেন ১ হাজার ৫৪১ জন। এছাড়া করোনায় আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৮ হাজার ৪২৫ জন। গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়েছেন ৫০০ জন।

নাসিমা সুলতানা জানান, করোনা ভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৯ হাজার ২৬৭টি। গত ২৪ ঘন্টায় নতুনভাবে সিরাজগঞ্জের এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজসহ ৪৯টি পরীক্ষাগারে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৯ হাজার ৩১০টি।

তিনি বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে এসেছেন ২৪৮ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ৪ হাজার ৯৮৪ জন। ২৪ ঘণ্টায় ছাড়পত্র পেয়েছেন ১৩৮ জন। এখন পর্যন্ত ছাড়পত্র পেয়েছেন ২ হাজার ৬৩৮ জন।

তিনি জানান, ২৪ ঘণ্টায় কোয়ারেন্টাইনে এসেছেন ৪ হাজার ১ জন। ছাড় পেয়েছেন ২ হাজার ৪০৪ জন। মোট ছাড় পেয়েছেন ২ লাখ ১৬ হাজার ৮১২ জন। বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৫৮ হাজার ২৯৩ জন। মোট কোয়ারেন্টিনে ছিলেন ২ লাখ ৭৫ হাজার ১০৫ জন।

নাসিমা সুলতানা জানান, দেশের বিমানবন্দর, নৌ, সমুদ্রবন্দর ও স্থলবন্দর দিয়ে গত ২৪ ঘন্টায় ১ হাজার ১৬৯ জনসহ সর্বমোট বাংলাদেশে আগত ৬ লাখ ৯৯ হাজার ৯৯ জনকে স্কিনিং করা হয়েছে।