করোনায় মৃতের সংখ্যা ২০, আক্রান্ত ২১৮ জন

0
568

করোনা ভাইরাসে গত ২৪ ঘন্টায় দেশে আরও ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০ জনে। এছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় দেশে আরও ৫৪ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে দেশে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা দাঁড়ালো ২১৮ জনে।

রাজধানীর মহাখালীতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনা ভাইরাস সম্পর্কে নিয়মিত অনলাইন লাইভ ব্রিফিংয়ে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)-এর পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা এ তথ্য জানান। এ সময় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) ডাক্তার সানিয়া তাহমিনা জোহরা উপস্থিত ছিলেন। খবর: বাসস।

গত ২৪ ঘন্টায় দেশের ১৬টি পরীক্ষাগারে ৯৮১ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হয়েছে জানিয়ে সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, ‘করোনায় নতুন আক্রান্ত ৫৪ জনের মধ্যে ৩৯ জন ঢাকার বিভিন্ন এলাকার, ১ জন ঢাকার পার্শ্ববর্তী এলাকার এবং ১৪ জন ঢাকার বাইরের।’

তিনি জানান, ‘আক্রান্তদের মধ্যে ৩৩ জন পুরুষ ও ২১ জন নারী। তাদের মধ্যে ১১ থেকে ২০ বছরের ৫ জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের ১৫ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের ১০ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের ৭ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের ৭ জন এবং ষাটোর্ধ ১০ জন। ইতোপূর্বে ৩৩ জন সুস্থ হলেও নতুন কেউ গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হননি।’

ডাক্তার সানিয়া তাহমিনা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ৭৩৭ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে এবং ১৩৯ জনকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে সারাদেশে ১০ হাজার ১৫৭ জন কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। এছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় ১৬ জনকে আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে এবং ৪২ জনকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে।

তিনি জানান, করোনা চিকিৎসায় সারাদেশে হাসপাতালগুলোতে আইসোলেশন বেড রয়েছে ৭ হাজার ৬৯৩টি, আইসিইউ বেড রয়েছে ১১২টি এবং ডায়ালাইসিস বেড আছে ৪০টি। ঢাকা মহানগরীতে আইসোলেশন বেড রয়েছে ১ হাজার ৫৫০টি এবং আইসিইউ ৭৯টি। ঢাকার বাইরে আইসোলেশন বেড আছে ৬ হাজার ১৪৩টি। ঢাকার বাইরে ময়মনসিংহে ২৬টি, খুলনায় ৫টি ও সিলেটে ২টি আইসিইউ বেড রয়েছে।

করোনা প্রতিরোধে দেশবাসীকে কোয়ারেন্টাইন বিধিমালা কঠোরভাবে মেনে চলার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সরকার সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে ব্যক্তি পর্যায়ে সতর্ক থাকলে করোনা বিস্তার রোধ করা সম্ভব হবে। আপনার ভাল আপনারই হাতে।’

অতিরিক্ত মহাপরিচালক জানান, স্বাস্থ্য বাতায়ন ও আইইডিসিয়ার’র হটলাইন নম্বরে এ পর্যন্ত ১৭ লাখ ১৮ হাজার ৬৭৭টি কল এসেছে। গত ২৪ ঘন্টায় ১ লাখ ১৫ হাজার ২৯১টি কল এসেছে।

তিনি জানান, করোনা ভাইরাস চিকিৎসা বিষয়ে এ পর্যন্ত ১৩ হাজার ৬৪৬ জন চিকিৎসক অনলাইনে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন। এদের মধ্যে ২ হাজার ৩৬৭ জন স্বাস্থ্য বাতায়ন ও আইইডিসিয়ার’র হটলাইনগুলোতে জনগণকে চিকিৎসাসেবা ও পরামর্শ দিচ্ছেন।