করোনায় মৃতের সংখ্যা ৬৮ হাজার ছাড়িয়েছে

0
580

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘন্টায় বিশ্বজুড়ে মারা গেছেন আরও ৩ হাজার ৭৮০ জন। এই সময়ের মধ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ৫৯ হাজার ৬৪০ জন।

রোববার ওয়ার্ল্ডোমিটার জানিয়েছে, এ পর্যন্ত মরণঘাতি এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১২ লাখ ৬১ হাজার ৯৩ জন। মোট মৃতের সংখ্যা ৬৮ হাজার ৪৬৮ জন। এছাড়া সুস্থ হয়েছেন ২ লাখ ৬০ হাজার ৩২ জন।

আক্রান্তের দিক থেকে গত ২৪ ঘন্টায় ইতালিকে ছাড়িয়ে গেছে স্পেন। এই সময়ের মধ্যে স্পেনে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ হাজার ৫৯১ জন। অন্যদিকে, ইতালিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ হাজার ৩১৬ জন।

স্পেনে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৩০ হাজার ৭৫৯ জন। মোট মৃতের সংখ্যা ১২ হাজার ৪১৮ জন।

মরণঘাতি এই ভাইরাসে ইতালিতে এই পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ২৮ হাজার ৯৪৮ জন। মারা গেছেন ১৫ হাজার ৮৮৭ জন। ইউরোপের দেশটিতে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে চিকিৎসা ক্ষেত্রেও পরিবর্তন আনা হয়েছে। চিকিৎসা করানো হচ্ছে রোবট চিকিৎসক দিয়ে।

তবে যুক্তরাষ্ট্রের পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ হাজার ৯২৮ জন। এই সময়ের মধ্যে মারা গেছেন ১ হাজার ২৭ জন। দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা ৯ হাজার ৪৭৯ জন। সব মিলিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৩১ হাজার ২৮৫ জন।

গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বেড়েছে জার্মানিতেও। দেশটিতে আক্রান্তে সংখ্যা লাখ ছাড়িয়েছে। ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুসারে জার্মানিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৯ জন। এ পর্যন্ত মারা গেছেন ১ হাজার ৫৭৫ জন।

এদিকে, করোনা ভাইরাসের আতুর ঘর চীনে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩০ জন এবং মারা গেছেন ৩ জন। দেশটিতে এই নিয়ে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৮১ হাজার ৬৬৯ জন এবং মারা গেলেন ৩ হাজার ৩২৯ জন।

গত ২৪ ঘন্টায় যুক্তরাজ্যে ৬২১ জন, বেলজিয়ামে ১৬৪ জন, ইরানে ১৫১ জন, নেদারল্যান্ডসে ১১৫ জন, তুরস্কে ৭৩ জন, স্যুইজারল্যান্ডে ৪৯ জন, কানাডায় ৪৬ জন, পর্তুগালে ২৯ জন, অস্ট্রিয়ায় ১৮ জন এবং পোল্যান্ড ও ব্রাজিলে ১৫ জন করে মারা গেছেন।

করোনা ভাইরাসের বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে গত দিনটি ছিল ফ্রান্সে জন্য স্বস্তির। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর এই প্রথম রোববারে দেশটিতে কারও আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। একই সাথে গত ২৪ ঘন্টায় ফ্রান্সে কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে কেউ মারা যাননি।  মোট আক্রান্তের সংখ্যার দিক থেকে দেশটিতে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, স্পেন, ইতালি ও জার্মানির পরেই। সেখানে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৮৯ হাজার ৯৫৩ জন। শনিবার পর্যন্ত ইউরোপের দেশটিতে মারা গেছেন ৭ হাজার ৫৬০ জন।