করোনা থেকে মুক্তির গল্প

প্রধানমন্ত্রীকে নিজের অভিজ্ঞতা জানালেন ফয়সাল শেখ

0
589
মঙ্গলবার ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিজের করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তির অভিজ্ঞতা জানান

পয়লা মার্চ জার্মানি থেকে দেশে ফেরার ১০ দিন পর ফয়সাল শেখের মধ্যে করোনা ভাইরাসের লক্ষণ দেখা দেয়। তিনি যোগাযোগ করেন রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)-এ। সেখানেই শনাক্ত হয় তিনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত।

আইইডিসিআর-এর তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা নিয়ে ফয়সাল এখন সুস্থ। বাড়িতে আছেন। ফয়সাল শেখ বাংলাদেশে শনাক্ত হওয়া প্রথম করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগী।

মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলেন ফয়সাল শেখ। জানান নিজের অভিজ্ঞতার কথা। বলেন, দেশে আসার ১০ দিন পর শরীর খারাপ হলো। আমার মাঝে করোনা ভাইরাসের লক্ষণ দেখা দেয়। আমি নিজেই উদ্যোগী হয়ে আইইডিসিআর-এ যাই।

প্রধানমন্ত্রীকে ফয়সাল বলেন, জার্মানির মত চিকিৎসা পাবো কিনা ভেবে প্রথমে একটু ভয় পেয়েছিলাম। শেষ পর্যন্ত আইইডিসিআর-এর নির্দেশনা অনুসারে আমি কুয়েত মৈতী হাসপাতালে কোয়ারেন্টাইনে থাকি। আমার পরিবারের সদস্য এবং আমি যাদের সাথে মিশেছি তাদেরও হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়।

ফয়সাল জানান, পরে কয়েক দফা টেস্ট করানোর পর করোনা ভাইরাস নেগেটিভ আসে। এরপর আমি পরিবারের কাছে ফিরে যাই।

আইইডিসিআর সম্পর্কে ফয়সাল প্রধানমন্ত্রীকে জানান, করোনা শনাক্ত হওয়ার পর থেকেই ডাক্তার ফার্সি আমার সাথে নিয়মিত যোযোগ রেখেছেন। সব সময় খোঁজ নিয়েছেন। আইইডিসিআর-এর সেবায় আমি সত্যিই খুশি।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে ফয়সাল বলেন, আপনার নির্দেশনায় আমি দেশবাসীকে বলবো ঘরে থাকুন। যতদিন ঘরে থাকতে বলা হয় ঘরে থাকুন। পরিবারের কারও সমস্যা হয়েছে কিনা প্রধানমন্ত্রীর এমন প্রশ্নের জবাবে ফয়সাল জানান, তার পরিবারের কারও কোন সমস্যা হয়নি। ফয়সালের উত্তর শুনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সন্তোষ প্রকাশ করেন।