দগ্ধ মুসল্লিদের জীবন শঙ্কায়

0
205
সংগৃহীত ছবি

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার তল্লা বাইতুস সালাম জামে মসজিদে দগ্ধদের প্রায় সবারই অবস্থা আশঙ্কাজনক। এদের শরীরের প্রায় ৭০ থেকে ৭৫ ভাগ দগ্ধ হয়েছে। এদের কয়েকজনের শরীরের ৯৯ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে পাঠানো হয়।

আগুনে দগ্ধ মুসল্লিকে রিকশায় করে নারায়ণগঞ্জ ১০০ শয্যা হাসপাতালে নেয়া হয়।
ছবি: সংগৃহীত

প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, মসজিদের সামনে থাকা বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমার প্রথমে বিস্ফোরিত হয়। এর পরপরই মসজিদের এসিতে বিস্ফোরণ ঘটে। ট্রান্সফরমারে থাকা গরম তেল মসজিদে পড়ায় এসি বিস্ফোরণের আগুন দ্রুতই মসজিদের ভিতর ছড়িয়ে পরে।

নারায়ণগঞ্জ ১০০ শয্যা হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক নাজমুল হোসেন আর্ট নিউজকে জানান, রাত ৯টার দিকে হাসপাতালে একের পর এক দগ্ধ হওয়া রোগী আসতে থাকেন। এদের কয়েকজনের শরীর ৯৯ শতাংশ পর্যন্ত পুড়ে গেছে। অধিকাংশেরই শরীর ৭০ থেকে ৭৫ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে।

তিনি জানান, একের পর এক দগ্ধ হওয়া রোগী আসায় জরুরী চিকিৎসা দিতে গিয়ে সবার নাম লেখা সম্ভব হয়নি। এদের প্রায় সবারই অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে দ্রুত ঢাকায় পাঠিয়ে দেয়া হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এসি বিস্ফোরণের পর মসজিদের ভিতর আগুন লেগে ছড়িয়ে পড়ে। এতে মুসল্লিরা দগ্ধ হতে থাকেন। স্থানীয়রা দ্রুত মসজিদে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া শুরু করেন।