দেশে করোনায় মৃত ও আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছেই

২৪ ঘন্টায় নতুন করে মৃত ২, আক্রান্ত ৯

0
788

গত ২৪ ঘন্টায় দেশে করোনা ভাইরাসে আরও ৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭০ জনে। এছাড়া একই সময়ের মধ্যে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও দুই জন মৃত্যুবরণ করেছেন। এ নিয়ে দেশে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ৮ জনে।

রাজধানীর মহাখালীতে স্বাস্থ্য অধিদফতরে নিয়মিত অনলাইন ব্রিফিংয়ে অধিদপ্তরের রোগতত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)-এর পরিচালক ডাক্তার মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা এ তথ্য জানান। খবর: বাসস।

ডাক্তার ফ্লোরা বলেন, গত ২৪ ঘন্টায় যারা আক্রান্ত হয়েছেন তাদের মধ্যে ২ জন শিশু, এদের বয়স ১০ বছরের নিচে। ৩ জনের বয়স ২০ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে, ২ জনের ৫০ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে, এক জনের বয়স ৬০ থেকে ৭০ বছর এবং এক জনের বয়স ৯০ বছর।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘন্টায় যে ২ জন মৃত্যুবরণ করেছেন এদের এক জন নতুন আক্রান্ত এবং ১ জন আগেই শনাক্ত হয়েছিলেন। এই দুই জনের মধ্যে ১ জনের বয়স ৯০ বছর, আরেকজনের বয়স ৬৮ বছর। একজন ঢাকার বাইরের, আরেকজন ঢাকার। এদের একজনের হৃদরোগ এবং আরেকজনের স্ট্রোকের ইতিহাস ছিল।

তিনি জানান, আক্রান্ত ৭০ জনের মধ্যে ৮ জন মারা গেছেন এবং ৩০ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি গেছেন। এই মুহূর্তে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২০ জন এবং ১২ জন বাড়িতে আমাদের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

ডাক্তার ফ্লোরা বলেন, আমরা গত ২৪ ঘন্টায় ৫৫৩ জনের নমুনা সংগ্রহ করেছি। এরমধ্যে পরীক্ষা করা হয়েছে ৪৩৪টি।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক জানান, গত ২৪ ঘন্টায় আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে ১৮ জন, ৩০ জনকে আইসোলেশন থেকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। আইসোলেশন থেকে এ পর্যন্ত বাড়ি গেছেন ৩২৮ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ৭২ জন।

মহাপরিচালক জানান, এ পর্যন্ত ৬৪ হাজার ৬৯৩ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইন ও ২৬০ জনকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন করা হয়েছে। অর্থাৎ মোট ৬৪ হাজার ৯৫৩ জনকে কোয়ারেন্টাইন করা হয়। গত ২৪ ঘন্টায় ৪৫৭ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইন ও ৬২ জনকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন করা হয়। অর্থাৎ ২৪ ঘন্টায় কোয়ারেন্টাইন করা হয়েছে ৪৬৯ জনকে।

করোনা প্রতিরোধে দেশবাসীকে কোয়ারেন্টাইন বিধিমালা কঠোরভাবে মেনে চলার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, করোনা ভাইরাসে প্রতিরোধে সরকার সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে ব্যক্তি পর্যায়ে সতর্ক থাকলে করোনা বিস্তার রোধ করা সম্ভব হবে।
বৈশ্বিক করোনা পরিস্থিতি সম্পর্কে তিনি বলেন, এ পর্যন্ত বিশ্বের ৯ লাখ ৭২ হাজার ৩০৩ জন আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যুবরণ করেছেন ৫০ হাজার ৩২২ জন। গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭৫ হাজার ৮৫৩ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৪ হাজার ৮২৩ জন।

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার এ পর্যন্ত ৫ হাজার ৮৮১ জন আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যুবরণ করেছেন ২৪৫ জন। গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৫৭ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ২৯ জন।