পান্থপথের বাড়ি মালিক কারাগারে

0
905
দুই মাসের শিশুসহ ভাড়াটেকে উচ্ছেদের দায়ে বাড়ি মালিক নূর আক্তার শম্পাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত

ভাড়াটিয়াকে করোনা দুর্যোগের মধ্যে নবজাতকসহ বাসা থেকে বের করে দেয়ার ঘটনায় বাড়ি মালিক নূর আক্তার শম্পাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এক মাসের বাসা ভাড়া বকেয়া থাকায় ভাড়াটিয়াকে বাসা থেকে বের করে দেয়া হয়েছিল।

বুধবার ঢাকা মহানগর হাকিম আবু সাঈদ শুনানি শেষে আসামি নূর আক্তার শম্পাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কলাবাগান থানার উপ-পরিদর্শক সাইদুর রহমান আসামিকে আদালতে হাজির করে পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন।

শুনানি শেষে উভয় পক্ষের জামিন ও রিমান্ড আবেদন নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

এক মাসের ভাড়া বাকি থাকায় রোববার রাতে ভাড়াটিয়াকে বাসা থেকে বের করে দেন নূর আক্তার শম্পা। ভুক্তভোগী সেলিম হোসেন পরে রাজধানীর কলাবাগান থানায় মারধর ও হত্যা চেষ্টার অভিযোগে মামলা করেন শম্পার বিরুদ্ধে।

মঙ্গলবার রাতে রাজধানীর ধানমণ্ডি এলাকা থেকে র‌্যাব-২ এর একটি টিম অভিযুক্ত শম্পাকে গ্রেফতার করে।

পান্থপথের ৫৮/৭ নম্বর বাসার ভাড়াটে সেলিম ও তার স্ত্রীকে এই বৈশ্বিক দুর্যোগে ভাড়ার জন্য রাতে তিন সন্তানসহ বের করে দেয়ার ঘটনাটি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী মানবিকভাবে বিবেচনা করে দ্রুতই ব্যবস্থা নেয়। এমনকি, গ্রেফতারের আগে র‌্যাব ও পুলিশ মানবিক কারণে বাসায় রাখার অনুরোধ জানিয়েছিল বাড়ি মালিককে। কিন্তু বাড়ি মালিক শম্পা তাদের অনুরোধ রাখতে অস্বীকৃতি জানান।

উল্লেখ্য, ভাড়াটের তিন সন্তানের মধ্যে একজনের বয়স মাত্র দুই মাস।