ভালো মানুষের খুব অভাব

0
1700
স্বপ্নের সারথি শাহ আলমগীর বইয়ের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী ডক্টর হাছান মাহমুদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফীন সিদ্দিক, সাংবাদিক মনজুরুল আহসান বুলবুল, সাইফুল আলম, সোহরাব হাসান ও প্রয়াত শাহ আলমগীরের সহধর্মিনী ফৌজিয়া বেগম মায়া। ছবি: আর্ট নিউজ বিডি

সমাজে ভালো মানুষের খুব অভাব বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ডক্টর হাছান মাহমুদ। বললেন, পৃথিবীতে পৌণে ৮শ’ কোটি মানুষ। এ সংখ্যা প্রতিনিয়ত বাড়ছে। কিন্তু ভালো মানুষের সংখ্যা বাড়ছে না।

বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া মিলনায়তনে প্রেস ইনস্টিটিউট বাংলাদেশ (পিআইবি)-এর প্রয়াত মহাপরিচালক শাহ আলমগীর স্মরণে প্রকাশিত ‘স্বপ্নের সারথি শাহ আলমগীর’ বইয়ের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফীন সিদ্দিক অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী বলেন, মানুষ এখন আত্মকেন্দ্রিক। মানুষ অদ্ভূত প্রতিযোগিতায় ব্যস্ত। কিন্তু এর মাঝেও ব্যতিক্রমী কিছু মানুষ আছেন, শাহ আলমগীর তেমন-ই একজন। সমাজকে সঠিক পথে পরিচালিত করতে শাহ আলমগীরের মত মানুষ প্রয়োজন।

হাছান মাহমুদ বলেন, শাহ আলমগীর পিআইবি’র অত্যন্ত দক্ষ মহাপরিচালক ছিলেন। তিনি পিআইবি’কে নতুনমাত্রায় নিয়ে গেছেন। তিনি এমন সব প্রকল্প হাতে নিয়েছিলেন যা কেউ আগে ভাবেইনি। মন্ত্রী বলেন, শাহ আলমগীর নির্লোভ ও নিরহংকারী মানুষ ছিলেন। এমন মানুষ যুগে যুগে কমই আসে।

বরেণ্য সাংবাদিক মনজুরুল আহসান বুলবুলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্রয়াত শাহ আলমগীরের সহধর্মিনী ফৌজিয়া বেগম মায়া, জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি ও যুগান্তর সম্পাদক সাইফুল আলম, প্রথম আলোর যুগ্ম-সম্পাদক সোহরাব হাসান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মফিজুর রহমান, জাতীয় প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি ওমর ফারুক, সাংবাদিক রহমান মুস্তাফিজ, শাহনাজ শারমীনসহ অন্যরা।

অনুষ্ঠানে বক্তারা প্রয়াত শাহ আলমগীরের কর্মময় জীবন নিয়ে আলোচনা করেন। তারা বলেন, সাংবাদিকদের মর্যাদা ও অধিকার সংরক্ষণে শাহ আলমগীর ছিলেন বলিষ্ঠ যোদ্ধা। মৃদুভাষী কিন্তু নীতিতে অটল ছিলেন তিনি। সাংবাদিকতায় পেশাদারিত্ব ফিরিয়ে আনতে তিনি কাজ করে গেছেন আমৃত্যু।