স্যানিটাইজার তৈরি করছে ছাত্র ইউনিয়ন

মানুষ মানুষের জন্য...

0
775
ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া

করোনা প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যপণ্যের দাম শ্রমজীবী মানুষ ও শিক্ষার্থীদের নাগালের বাইরে। বরং সুযোগ বুঝে পাইকারি ও খুচরা বাজারে বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে দাম। এমন পরিস্থিতিতে সাংগঠনিক উদ্যোগে স্যানিটাইজার তৈরী করে বিনামূল্যে সরবারহ করছে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে প্রস্তুত করা হচ্ছে স্যানিটাইজার।

ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সংসদ বলছে, করোনার সর্বোচ্চ ঝুঁকিতে আছে দেশের শ্রমজীবী মানুষ। কিন্তু করোনা প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যপণ্য গুলো তাদের নাগালের বাইরে। অন্যদিকে অসাধু ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেটের কারণে স্যানিটাইজার, মাস্কের বাজারে অপ্রাপ্যতা ও দুই থেকে তিন গুণ দাম বৃদ্ধি দেখা দিয়েছে। তাই ছাত্র ইউনিয়ন তার সাত দশকের ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের শ্রমজীবী মানুষ ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক অনিক রায় জানিয়েছেন, স্যানিটাইজার তৈরীর কাজ শুরু করেছে ছাত্র ইউনিয়ন। প্রাথমিকভাবে ১০০ লিটার স্যানিটাইজার তৈরী করা হবে। এই স্যানিটাইজার শ্রমজীবী মানুষ ও শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে।

স্যানিটাইজার উৎপাদনে গণতহবিল গঠনের ঘোষণাও দিয়েছে সংগঠনটি। তহবিলে আর্থিক সহযোগিতা পাঠাতে ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটির সাথে যোগাযোগ করার আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

স্যানিটাইজার প্রস্তুত করা ব্যয় সাপেক্ষ হওয়ায় জনসাধারণের কাছ থেকে আর্থিক সহায়তা নিচ্ছে ছাত্র ইউনিয়ন। সহায়তা পাঠানো যাবে নিচের নাম্বারগুলোতে:

বিকাশ: ০১৭৮৪-৯৮৩ ৫৭৭

রকেট: ০১৭৮৪-৯৮৩ ৫৭৭ ১

নগদ: ০১৯৭১ ১০৪ ০৭৭

এই নাম্বারগুলোতে আর্থিক সহায়তা পাঠানো যাবে। তিনটি নাম্বারই পার্সোনাল। এছাড়া টাকা দেয়া যাবে ব্যাংকেও। জনতা ব্যাংক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, টিএসসি শাখায় টাকা জমা দেয়া যাবে। অ্যাকাউন্ট নাম: বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন। নাম্বার: ০১০০-০০৩-৫৯২-৫৭৪।